• সোম. মে 20th, 2024

ওয়াংখেড়ে উন্মুক্ত হচ্ছে শচীন টেন্ডুলকারের অসাধারণ ভাস্কর্য: মুম্বাই ক্রিকেটে একটি নতুন যুগের আগমন

Byএনামুল হক

অক্টো. 15, 2023

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে আসছে একটি নতুন অধূনিক ঘটনা, এবারে তা হচ্ছে ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকারের ভাস্কর্যের উন্মোচন। এই বিশ্বকাপ জয়ী ক্রিকেটার মুম্বাইয়ে স্থানীয় ম্যাচে ১০ বছর আগে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচটি খেলেছিলেন, এবং এবার মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন তাকে একটি উচ্চতা দান করবে স্থানীয় ওয়াংখেড়ে।

মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অমল কালে ঘোষণা দিয়েছেন, ওয়াংখেড়ে স্থাপন হবে একটি ২০ ফুট উঁচু ভাস্কর্য টেন্ডুলকারের মাত্র জন্য, এটি হিসেবে একটি বিশেষ উপহার। এই ঘটনার মাধ্যমে টেন্ডুলকার হতে যাচ্ছেন দ্বিতীয় ক্রিকেটার, যার ভাস্কর্যটি উন্মোচন করা হবে মুম্বাইয়ের এই স্টেডিয়ামে।

এই ঘটনা সম্পর্কে জানা গিয়েছে, মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের একজন সূত্রের অনুসারে, ভাস্কর্যটি শচীন টেন্ডুলকার ও বিজয় মার্চেন্ট স্ট্যান্ডের মাঝে বসানো হতে পারে। বিশ্বকাপের কোনো একটি ম্যাচের আগে, এটি গুরুত্বপূর্ণ হওয়ার আশঙ্কা উল্লেখযোগ্য।

এই প্রস্তুতির মধ্যে, মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন আগামীকালে অধিনায়কদের একটি মিটিং করবে, যেখানে আসতে পারে টেন্ডুলকার নিজেও। মুম্বাইয়ে বিশ্বকাপের একাধিক ম্যাচ খেলা হতে চলেছে, এবং ভাস্কর্য টেন্ডুলকারের জন্য একটি অদৃশ্য সম্ভাবনা তৈরি হচ্ছে।

আবারও তুলে ধরা হয়েছে, এই ভাস্কর্যের স্থাপন একজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীর দ্বারা করা হতে পারে, যার মাধ্যমে এটি উদ্বোধন করা হবে।

মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অমল কাল এই সম্পর্কে কিছু কথা বলেছেন, “টেন্ডুলকার একজন বিশেষ ক্রিকেটার, আমরা তার অধিনায়কত্বের প্রকাশের জন্য এই বিশেষ উপহার তৈরি করতে চাচ্ছি। এটি হবে একটি ইতিহাসমান ঘটনা, এবং তার জন্য ওয়াংখেড়ে একটি আলাদা জায়গা হবে।”

এই ছবির বাইরে, আরও কিছু বিশ্বখ্যাত ক্রিকেটারদের ভাস্কর্য থাকতে পারে। লন্ডনের মাদাম তুসো জাদুঘরে ভাস্কর্য করা হয়েছে বিশ্বখ্যাত অস্ট্রেলিয়ান লেগ স্পিনার শেন ওয়ার্নের সাথে, এবং এটি হচ্ছে একটি অভিজ্ঞানমূলক অভিজ্ঞান।

এই সময়ে, মুম্বাইয়ের ক্রিকেট বন্ধুরা অপেক্ষায় আছেন এই অত্যন্ত গৌরবময় ঘটনায়, শচীন টেন্ডুলকারের উন্মোচনের যেসময় অস্তিত্ব পাবে ভারতীয় ক্রিকেট জগত। আমরা দেখতে থাকবো এই অসুপার অভিজ্ঞানের জন্য ওয়াংখেড়ে একটি নতুন যুগ।