• বুধ. মে 18th, 2022

মাধ্যমিকের ১২ বছরের কম বয়সীদের ক্লাস কীভাবে

Byসাদ উদ্দিন

ফেব্রু. 21, 2022

করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে দ্বিতীয় ধাপে এক মাস বন্ধের পর আগামীকাল মঙ্গলবার খুলছে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। শিক্ষা প্রশাসন জানিয়েছে, মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে যেসব শিক্ষার্থী করোনার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছে, তারাই কেবল শ্রেণিকক্ষে যেতে পারবে। বাকিদের ক্লাস হবে অনলাইনে। কিন্তু ষষ্ঠ শ্রেণির অনেক শিক্ষার্থীর বয়স এখনো ১২ বছরের কিছু কম। তাদের সশরীর ক্লাসের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনাও নেই। ফলে তাদের ক্লাসের বিষয়টি নিয়ে একধরনের জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।

একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, টিকা দিতে না পারা শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিয়ে কিছুটা অসুবিধা হবে। কারণ, প্রথমত অনলাইন ক্লাসের সুবিধা অনেক শিক্ষার্থীর নেই। আবার সশরীর ক্লাস এবং অনলাইনে ক্লাস—এ দুই কার্যক্রম একসঙ্গে চালিয়ে নেওয়ার মতো সামর্থ্যও অনেক বিদ্যালয়ের নেই।

বিষয়টি নিয়ে অভিভাবকেরাও চিন্তিত। রাজউক উত্তরা মডেল কলেজের ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর বাবা আজ প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর সন্তানের বয়স ১২ বছরের কিছু কম। ফলে তার টিকা দেওয়া যায়নি। এ অবস্থায় তাঁর সন্তানের মতো শিক্ষার্থীদের ক্লাস কীভাবে হবে, সেটি আজ বিকেল পর্যন্ত জানতে পারেননি।

অবশ্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ষষ্ঠ শ্রেণির যেসব শিক্ষার্থীর বয়স এখনো ১২ বছর হয়নি, তারা আপাতত অনলাইনেই ক্লাস করবে। এই বয়সী শিক্ষার্থীর সংখ্যা হতে পারে দুই থেকে তিন লাখ। দু-এক মাসের মধ্যে তাদের বয়স ১২ বছর পূর্ণ হয়ে গেলে টিকা দেওয়া হবে। এ ছাড়া যারা করোনার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে পারেনি, তারাও আপাতত অনলাইনে ক্লাস করবে। শিক্ষার্থীদের টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া এ মাসে শেষ হতে পারে বলে তিনি আশা করেন।

দেশে ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত (১২ বছরের বেশি বয়সী) মোট শিক্ষার্থী প্রায় ১ কোটি ২৮ লাখ। মাউশির ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের (ইএমআইএস) একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রথম ডোজ টিকা নেওয়া হয়ে গেছে প্রায় সবার। আর দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছে ৫০ লাখের মতো।