ফুসফুস ক্যান্সারের প্রধান কারণ

ফুসফুস ক্যান্সারের প্রধান কারণ

ক্যান্সার… আধুনিক শতাব্দীতে অপ্রতিরোধ্য এক মরণ ব্যাধির নাম।

আর বেশিরভাগ ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীর মধ্যে অধিকাংশই ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়। এর কারণ মানুষের অসচেতনতা ও কিছু বদঅভ্যাস।

স্বাস্থ্য ফুসফুস ক্যান্সারের প্রধান কারণ

আসুন জেনে নেয়া যাক ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হবার প্রধান কারণ গুলো কি কি-

  • ধূমপান: ধূমপান করলে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে- এটা আমরা সবাই জানি। কিন্তু এই প্রক্রিয়াটি খুব ধীর গতিতে হয়ে থাকে। যে কারণে ধূমপায়ীরা বুঝতেই পারেন না এই বদঅভ্যাসটি তাদের মৃত্যুর দিকে নিয়ে যাচ্ছে। একটি মার্কিন গবেষণায় দেখা গেছে, দেশটির ৯০ শতাংশ ফুসফুস ক্যান্সারের জন্য দায়ী ধূমপানের অভ্যাস।
  • পরোক্ষ ধূমপান: পরোক্ষ ধূমপানও ফুসফুসের সমান ক্ষতি করছে। তাই ধূমপায়ী না হয়েও পাশের ব্যক্তির ধূমপানের সংস্পর্শে আপনার ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেকটাই বেড়ে যায়।
  • পরিবারে ক্যান্সারের ইতিহাস থাকলে: যাদের পরিবারে ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগী রয়েছেন বা ছিলেন (বিশেষ করে ফুসফুস ক্যান্সার) তাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি থাকে। তাই পারিবারে ক্যান্সার আক্রান্ত কেউ থেকে থাকলে অবহেলা না করে নিয়মিত শরীর চেকআপ করান।
  • নানা ধরণের কেমিক্যাল: অ্যাসবেস্টোস, আর্সেনিক, নিকেল, ক্রোমিয়াম বা এই জাতীয় মৌলগুলোর সংস্পর্শে বেশি বেশি আসার ফলে ফুসফুস ক্যান্সারের ঝুঁকি কয়েকগুণ বেড়ে যায়। তাই যারা কল-কারখানায় কাজ করেন, তাদের মধ্যে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি।
  • রেডন: রেডন হচ্ছে একধরণের কেমিক্যাল উপাদান, যা মানুষের শরীরের সংস্পর্শে এসে ক্ষতি করে। মাটির নিচে যেখানে খুব বেশি আলোবাতাস পৌঁছায় না, (যেমন আন্ডারগ্রাইন্ড খনি) এমন সব স্থানে রেডন উৎপন্ন হয়। যারা খনি বা এই ধরণের কোনো স্থানে কাজ করেন, রেডনের সংস্পর্শে থাকার কারণে তারা ফুসফুসে ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন।
Please follow and like us:

Post Reads: 178 Times

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *