পুলিশের সব দাবি মেনে নিলেন প্রধানমন্ত্রী ।

পুলিশ সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বেশ কিছু দাবি তুলে ধরেছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

এসব দাবির মধ্যে রয়েছে—

  • আজীবন পেনশন সুবিধা,
  • বিশেষ ভাতা, ক্রীড়া কমপ্লেক্স স্থাপন,
  • আলাদা মেডিক্যাল কলেজ ও কোর ইত্যাদি।

পুলিশ সদস্যদের প্রতিটি দাবি মনোযোগ দিয়ে শোনেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি দাবিগুলো শুনে বাস্তবায়নের আশ্বাসও দেন। এর মধ্যে আজীবন পেনশনের বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনায় রাখবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সভার শুরুতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কনস্টেবল নাজমুন্নাহার প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাঁর দাবি তুলে ধরে বলেন, ক্রীড়াঙ্গনে পুলিশের অনেক সফলতা রয়েছে। কিন্তু পুলিশের কোনো ক্রীড়া কমপ্লেক্স নেই। তিনি একটি ক্রীড়া কমপ্লেক্স স্থাপনের দাবি জানান। প্রধানমন্ত্রী তাঁর দাবি মেনে নিয়ে ক্রীড়া কমপ্লেক্সের জন্য জমি দেখতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নির্দেশনা দেন।

ব্যক্তিগত যেসব মোটরসাইকেল সরকারি কাজে ব্যবহার করা হয়, সেগুলোর জ্বালানি ও রক্ষণাবেক্ষণ ভাতা দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি করেন স্পেশাল ব্রাঞ্চের (এসবি) উপপরিদর্শক (এসআই-নিরস্ত্র) কামরুল আলম। প্রধানমন্ত্রী তাঁর এ দাবিও পূরণের আশ্বাস দেন।

গফরগাঁও থানার ওসি আব্দুল আহাদ খান প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাঁর দাবি তুলে ধরে বলেন, চাকরিরত অবস্থায় পুলিশ সদস্যরা মারা গেলে বর্তমানে পাঁচ লাখ টাকা পেয়ে থাকেন। গুরুতর আহত হলে পেয়ে থাকেন মাত্র এক লাখ টাকা। এটিকে আট লাখ ও চার লাখ টাকা করার দাবি জানান তিনি। আর দায়িত্বরত অবস্থায় বা অভিযানে গিয়ে মারা গেলে সে ক্ষেত্রে ১৫ লাখ ও আট লাখ টাকা দেওয়ারও দাবি জানান পরিদর্শক আব্দুল আহাদ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর এই দাবিও মেনে নেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক সার্জেন্ট সিলভিয়া ফেরদৌস প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাঁর দাবি তুলে ধরে বলেন, বর্তমানে এক কাপ চা ১০ টাকা। কিন্তু পুলিশ সদস্যরা আগের সেই ২০ থেকে ২৫ টাকা ভাতাই পেয়ে থাকেন। ট্রাফিকরা বর্তমানে ২০১১ সালের বেতন স্কেল অনুযায়ী ৩০ শতাংশ ভাতা পেয়ে থাকেন। বর্তমান (২০১৫ সালের) বেতন স্কেল অনুযায়ী ভাতা দেওয়ার দাবি জানান সিলভিয়া। এ ছাড়া গ্রেডভিত্তিক ভাতা বৃদ্ধিরও দাবি জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রী এই দাবিও বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন।

Please follow and like us:

Post Reads: 64 Times

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *