তালেবানের সাথে গোপন আঁতাত করছে রাশিয়াঃ অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের

তালেবানের সাথে গোপন আঁতাত করছে রাশিয়া এই রকম অভিযোগ তুলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের মদদে যুদ্ধে নেমেছিল আফগান মুজাহিদরা। তাদের বেশির ভাগই পরে তালেবান জঙ্গি হয়। শুরুতে রাশিয়ার সঙ্গে মুখ দেখাদেখিও ছিল বন্ধ। তবে যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, তাজিক সীমান্ত দিয়ে তালেবান জঙ্গিদের এখন অস্ত্র সরবরাহ করছে রাশিয়া।
তালেবান জঙ্গিরা রীতিমতো প্রশিক্ষিত। তাদের ছোড়া অস্ত্রের পাল্টা জবাব দিতে অনেক সময় হিমশিম খেতে হয় সামরিক বাহিনীকে। মার্কিন সামরিক বাহিনীকেও ঘায়েল করেছিল তারা। কারা কোথা থেকে রসদ জোগায় তালেবান জঙ্গিদের? এই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে অনেক দিন থেকেই।

কখনো বলা হয়েছে পাকিস্তান তাদের মদদ দিচ্ছে। ইরানের নামও এসেছে কয়েকবার। সেই তালিকায় এবার যুক্ত হলো রাশিয়া। ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান থেকে ক্ষমতাচ্যুত করার পরই তালেবানের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক গড়ার সুযোগ তৈরি হয়। ১০ বছর আগে থেকে মস্কো ও তালেবান জঙ্গিদের মধ্যে যোগাযোগের শুরু। এসব সূত্র আরও বলছে, গত তিন বছরে মস্কোর সঙ্গে তালেবান জঙ্গিদের সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হয়। বিশেষ করে ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে জঙ্গি দল ‘আইএস খোরাসান’ গড়ে ওঠার পরে সম্পর্ক নতুন মাত্রা পায়।

 

এসব সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে তালেবানের কয়েকটি সূত্রের বরাত দিয়ে আরও বলা হয়েছে, তালেবান প্রতিনিধিরা রাশিয়ার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কয়েকবার দেখা করেছেন। রাশিয়া ছাড়া অন্য দেশগুলোতেও তাদের মধ্যে দেখা-সাক্ষাৎ হয়েছে। তালেবানরা আশা করছে, রাশিয়ার কাছ থেকে তারা অত্যাধুনিক অস্ত্র পাবে। সোভিয়েত-আফগান যুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র যেমন অত্যাধুনিক অস্ত্র দিয়েছে, তেমন অস্ত্রই চায় তালেবান জঙ্গিরা। তালেবান ইরান ও চীনের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে চায়।

রাশিয়াকে পাশে পেলে কূটনৈতিক সম্পর্ক নতুন মাত্রা পাবে। পেছনের দিকে তাকালে রাশিয়ার সঙ্গে তালেবানদের সম্পর্ক উন্নয়নের ধারাটি কিছুটা বোঝা যায়।আফগানিস্তানে তালেবানরা ২০১৩ ও ২০১৬ সালে রাশিয়ার দুজন নাগরিককে অপহরণ করে। দীর্ঘদিন ধরে আলোচনার পর দুজন রুশ নাগরিককে মুক্তিও দেয় তালেবানরা। দ্বিতীয়ত, আফগানিস্তানে আইএস জঙ্গিদের উত্থানে মস্কো কিছুটা ভয় পেয়ে যায়। মস্কোর আশঙ্কা, আইএস জঙ্গিরা এশিয়ার মধ্যাঞ্চলে ও রাশিয়ায় ছড়িয়ে যেতে পারে। এ কারণে রাশিয়া তালেবানদের দিকে ঝুঁকে। এর সুযোগ নিয়েছে তালেবানরাও।

Please follow and like us:

Post Reads: 86 Times

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *