আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমার আশাবাদ

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বহুজাতিক বিনিয়োগ ব্যাংক জেপি মরগান তাদের এক রিপোর্ট এ, আগামী দিনগুলোয় আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম নতুন করে ৫০ ডলারে নেমে আসতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে ।

২০১৪ সালের শেষ সময় থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দরপতনের সূত্রপাত। এ সময় প্রতি ব্যারেল জ্বালানি তেলের দাম ১০০ ডলারের ওপরে ছিল। দরপতনের ধারাবাহিকতায় তা ব্যারেলপ্রতি ৩০ ডলারের নিচে নেমে যায়। আন্তর্জাতিক বাজারে চাহিদা ও সরবরাহে ভারসাম্য এনে দরপতনের লাগাম টানতে জ্বালানি পণ্যটির বৈশ্বিক উত্তোলন হ্রাসের চুক্তি করে ওপেক। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের সম্মিলিত দৈনিক উত্তোলন ২০১৬ সালের শুরু পর্যায় থেকে ১৮ লাখ ব্যারেল কমিয়ে আনার ঘোষণা দেয়া হয়। এর মধ্য দিয়ে জ্বালানি পণ্যটির বৈশ্বিক মজুদ পাঁচ বছরের গড়ের সমপর্যায়ে নেমে আসবে বলেও প্রত্যাশা করা হয়েছিল।

বর্তমানে রাশিয়াসহ ওপেকবহির্ভূত কয়েকটি দেশ চুক্তির শর্ত মেনে চলছে। চুক্তির শর্ত বাস্তবায়নে দীর্ঘসূত্রতার জের ধরে এর মেয়াদ দুই দফা বাড়ানো হয়। চলতি বছরের ডিসেম্বরে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।

তবে ওপেক-নন ওপেক সহযোগিতা ও এ চুক্তির সুফল পেয়েছেন খাতসংশ্লিষ্টরা। উত্তোলন ও সরবরাহ কমায় আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম বাড়তে শুরু করেছে। যদিও এ মূল্যবৃদ্ধি ওপেকের কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় হয়নি। তবুও আশায় বুক বেঁধেছিলেন খাতসংশ্লিষ্টরা। এমন পরিস্থিতিতে জেপি মরগানের এ পর্যবেক্ষণ নতুন করে হতাশার জন্ম দিতে পারে। প্রতিষ্ঠানটির পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির ধারা দ্রুত বদলে যেতে পারে। আগামী দিনগুলোয় জ্বালানি পণ্যটির দাম ব্যারেলপ্রতি ৫০ ডলারে নামতে পারে। অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের নতুন করে দাম কমার পেছনে ওপেকভুক্ত ও জোটবহির্ভূত শীর্ষ উত্তোলনকারী দেশগুলোর (বিশেষত যুক্তরাষ্ট্র) ভিন্ন আচরণকে চিহ্নিত করেছে জেপি মরগান।

Please follow and like us:

Post Reads: 189 Times

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *