গরু-ছাগলের শিং রাখার পক্ষে-বিপক্ষে ভোটযুদ্ধ!

goat horn switzerland

আজ এক অভিনব ভোটযুদ্ধ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইউরোপের দেশ সুইজারল্যান্ডে। সাধারণত ভোটযুদ্ধে আমরা প্রিয় প্রার্থী নির্বাচনের জন্য ভোট দিলেও আজ সুইজারল্যান্ডের জনগন গরু-ছাগলের শিং রাখার পক্ষে-বিপক্ষে ভোট দিবে। গরু-ছাগলের শিং নিয়ে বিতর্কের জের ধরে আয়োজিত হচ্ছে এই  গণভোট।

সুইজারল্যান্ডের নিয়ম অনুযায়ী দেশটির খামারিরা গরু-ছাগলের শিং রাখতে পারে না। অল্প বয়সেই গরু-ছাগলের শিং কেটে ফেলা বা এমনভাবে নষ্ট করে দেয়া হয় যাতে সেগুলো আর বড় হতে না পারে।

এর পক্ষে যুক্তি হলো- শিং থাকলে গরু-ছাগলগুলো আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে, ফলে মানুষকে  যেমন আহত করতে পারে তেমনি এক জায়গায় বেশি গরু-ছাগল থাকলে তারা একে অন্যকে আহত করতে পারে। তাছাড়া শিংওয়ালা গরু-ছাগল রাখতে জায়গা বেশি লাগে। এসব চিন্তা করেই সুইজারল্যান্ডে গরু-ছাগলের শিং না রাখার বিধান করা হয়।

goat-cover-lawson

নিরাপত্তা জনিত কারণে রীতিমত আইন করে গরু-ছাগলের মাথায় শিং রাখলে মোটা অংকের জরিমানার বিধান প্রচলিত রয়েছে সুইজারল্যান্ডে । গরু-ছাগলের মাথায় শিং রাখলে বছরপ্রতি ১৯০ সুইস ফ্রাঙ্ক দেশটির কোষাগারে জমা দিতে হয় মালিককে। মূলত এ কারনে সুইজারল্যান্ডে বেশির  ভাগ গরু-ছাগলকেই শিংহীন অবস্থায় দেখা যায়। ছোট অবস্থায় গরু-ছাগলের শিং গজানোর সময়েই বিশেষ উপায়ে সেটি পুড়িয়ে বা কেটে ফেলা হয়, যাতে তা আর বড় হতে না পারে।

আর এর প্রতিবাদেই সুইজারল্যান্ডের গরু-ছাগলের শিং রাখার অনুমতি ফিরিয়ে দিতে আন্দোলন শুরু করেন উত্তর-পশ্চিম সুইজারল্যান্ডের বাসিন্দা  আরমিন কাপাউল নামের এক কৃষক। আরমিন কাপাউল বলেন, শিং দিয়েই গরু-ছাগলরা তাদের মনের ভাব বোঝায়। তাছাড়া এভাবে শিং কেটে  দিলে তাদের শারীরবৃত্তীয় কাজেও প্রভাব ফেলে। আর তাই কেউই প্রকৃতিগত ভাবে প্রাপ্ত গরু-ছাগলের রূপ বদলে ফেলার পক্ষে নয়।

switzerland-dehorning-cows-goat

এ পরিস্থিতিতে গরু-ছাগলের শিং থাকবে কি না সেই বিতর্কের অবসান ঘটাতে আজ রবিবার একটি গণভোটের আয়োজন করা হয়েছে দেশ জুড়ে। আর গরু-ছাগলের শিং কাটার বিপক্ষে জনমত গড়ে তুলতে লক্ষাধিক গরু-ছাগলপ্রেমীর স্বাক্ষর জোগাড় করা হয়েছে ।

ভোটাররা শিংয়ের পক্ষে রায় দিলে গরু-ছাগলের শিং রাখা বৈধ ঘোষণা করা হবে দেশটিতে। তবে দেখা যাক এই অভিনব ভোট যুদ্ধে শেষপর্যন্ত গরু-ছাগল প্রেমীরা জয় লাভ করে  কিনা।

Please follow and like us:

Post Reads: 57 Times

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *